সর্বশেষ আপডেট করা হয়েছে :2014-08-19 
Links
 
এ পর্যন্ত পড়েছেন
জন পাঠক
 
সর্বমোট জীবনী 287 টি
ক্ষেত্রসমূহ
সাহিত্য ( 37 )
শিল্পকলা ( 18 )
সমাজবিজ্ঞান ( 8 )
দর্শন ( 2 )
শিক্ষা ( 18 )
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ( 8 )
সংগীত ( 9 )
পারফর্মিং আর্ট ( 8 )
প্রকৃতি ও পরিবেশ ( 2 )
গণমাধ্যম ( 7 )
মুক্তিসংগ্রাম ( 129 )
চিকিৎসা বিজ্ঞান ( 3 )
ইতিহাস গবেষণা ( 0 )
স্থাপত্য ( 1 )
সংগঠক ( 8 )
ক্রীড়া ( 6 )
মানবাধিকার ( 2 )
লোকসংস্কৃতি ( 0 )
নারী অধিকার আন্দোলন ( 2 )
আদিবাসী অধিকার আন্দোলন ( 1 )
যন্ত্র সংগীত ( 0 )
উচ্চাঙ্গ সংগীত ( 0 )
আইন ( 1 )
আলোকচিত্র ( 3 )
সাহিত্য গবেষণা ( 0 )
Untitled Document
এ মাসে জন্মদিন যাঁদের
এম আর খান: আগস্ট ০১
নাজমুল হক: আগস্ট ০১
লুকাস মারান্ডী: আগস্ট ০১
সন্তোষচন্দ্র ভট্টাচার্য: আগস্ট ০৩
আবুল হাসান: আগস্ট ০৪
মহাদেব সাহা: আগস্ট ০৫
অনুপম সেন: আগস্ট ০৫
এম আর আক্তার মুকুল: আগস্ট ০৯
এস এম সুলতান: আগস্ট ১০
গিয়াসউদ্দিন আহমদ: আগস্ট ১১
সালমা সোবহান: আগস্ট ১১
আবুল হোসেন: আগস্ট ১৫
অরবিন্দ ঘোষ : আগস্ট ১৫
মুর্তজা বশীর: আগস্ট ১৭
শামীম আরা টলি: আগস্ট ১৭
সেলিম আল দীন: আগস্ট ১৮
যতীন সরকার: আগস্ট ১৮
জহির রায়হান: আগস্ট ১৯
আনোয়ার হোসেন: আগস্ট ২০
নেত্রকোণার গুণীজন
উপদেষ্টা পরিষদ
গুণীজন ট্রাষ্ট-এর ইতিহাস
"গুণীজন"- এর পেছনে যাঁরা

If you cannot view the fonts properly please download and Install this file.
 
Untitled Document

 

Online Exhibition
New Prof
সুলতানা সারওয়াত আরা জামান আলমগীর কবির তরুবালা কর্মকার
 
শহীদ বুদ্ধিজীবী জহির রায়হানের জন্মদিন আজ

১৯৭১ সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যখন বাঙ্গালি নিধনযজ্ঞে মত্ত, ঠিক তখনই অস্ত্র হিসেবে ক্যামেরাকে হাতে তুলে নিয়েছিলেন জহির রায়হান এবং এপ্রিল-মে মাসের দিকে তৈরী করেছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতে আশ্রয়গ্রহণকারী বাঙালিদের দুঃখ-দুর্দশা, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হত্যাযজ্ঞ, রাজাকার, আল-বদর ও আল-সামস-এর খুন-ধর্ষণ-রাহাজানির চলচ্চিত্র। গণহত্যা বন্ধ করার জন্য যিনি সারা জাগানো চলচ্চিত্র 'স্টপ জেনোসাইড' নির্মাণ করলেন, তাঁকেই হত্যা করা হলো এই স্বাধীন দেশের মাটিতে ১৯৭২ সালের জানুয়ারীতে। মুক্তিযুদ্ধের পূর্বে দেশের মানুষের জীবন, সংগ্রাম ও স্বাধীনতার চেতনায় সমৃদ্ধ 'জীবন থেকে নেয়া' ছবিটি নির্মাণ করেন জহির রায়হান। 'জীবন থেকে নেয়া' মুক্তিযুদ্ধের প্রথম ছবি।

জহির রায়হানের জন্ম ১৯৩৫ সালের ১৯ আগস্ট। বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলার ফেনী মহকুমার মজুপুর গ্রামে।

তাঁর জন্মদিনে 'গুণীজন' তাঁকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছে।

জহির রায়হানের বর্ণাঢ্য জীবনী পড়তে ক্লিক করুন।

সাহিত্যিক যতীন সরকারের জন্মদিন

নেত্রকোনা জেলা সদর থেকে প্রায় দশ মাইল দূরে কেন্দুয়া থানার চন্দপাড়া গ্রামে ১৯৩৬ সালের ১৮ আগস্ট যতীন সরকারের জন্ম।

যতীন সরকার শুধু মানুষের চিন্তার মুক্তির জন্য লিখে লড়াই করেননি। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সংগঠনের সাথে সরাসরি জড়িত থেকে ভূমিকা পালন করেছেন সক্রিয়ভাবে। বাংলা একাডেমীর আজীবন সদস্য হওয়ার মতো সাংগঠনিক সম্মানের পাশাপাশি উদীচীর সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশের প্রগতিশীল আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা রাখছেন।

তাঁর জন্মদিনে 'গুণীজন'-এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা রইল।

যতীন সরকারের বর্ণাঢ্য জীবনী পড়তে ক্লিক করুন।

নাট্যকার সেলিম আল দীনের জন্মদিন

সেলিম আল দীন জন্মেছিলেন ১৯৪৯ সালের ১৮ই আগস্ট ফেনীর সোনারগাজী থানার সেনেরখিল গ্রামে।

শিল্প বিষয়ে জ্ঞান অর্জন, নিজের শিল্পবিশ্বাস নির্মাণ করে তা অনুশীলন ও পরবর্তী প্রজন্মকে সেই শিল্প ধারণায় অবগাহনের প্রেরণা আমৃত্যু সঞ্চার করেন যিনি তিনিই তো একজন আচার্য হয়ে ওঠেন। সেই অর্থে সেলিম আল দীনের অবস্থান আমাদের সাহিত্যক্ষেত্রে একজন আচার্যের মতোই। তাঁর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে যে দায়িত্ব তিনি পরবর্তী প্রজন্মের কাছে অর্পন করে গেছেন, তা তাদেরকে অবিরাম প্রেরণা দিয়ে যাবে।

তাঁর জন্মদিনে 'গুণীজন' তাঁকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে।

সেলিম আল দীনের বর্ণাঢ্য জীবনী পড়তে ক্লিক করুন।

চিত্রশিল্পী মুর্তজা বশীরের জন্মদিন

১৯৩২ সালের ১৭ আগষ্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার এক সম্ভ্রান্ত-শিক্ষিত মধ্যবিত্ত মুসলিম পরিবারে মুর্তজা বশীরের জন্ম।

চিত্রকলা ছাড়াও তাঁর বিচরণ ছিল সাহিত্য এবং চলচ্চিত্র অঙ্গনে। তাঁর কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ১৯৮০ সালে একুশে পদক, ১৯৭৫ সালে শিল্পকলা একাডেমী পুরস্কার, ১৯৮৯ সালে বাংলা ১৪০০ বছর উপলক্ষে চট্টগ্রাম আইনজীবী সহকারী সমিতি কর্তৃক সম্মাননা, ১৯৯৫ সালে চট্টগ্রাম ইয়ুথ কয়ার প্রদত্ত একুশে মেলা পদক, ২০০৩ সালে সুলতান স্বর্ণপদক, ২০০৭ সালে কবি চন্দ্রাবতী স্বর্ণপদকসহ আরও বহু জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কার এবং সম্মান অর্জন করেছেন তিনি।

তাঁর জন্মদিনে 'গুণীজন'-এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা রইল।

মুর্তজা বশীরের বর্ণাঢ্য জীবনী পড়তে ক্লিক করুন।

ক্রীড়াবিদ শামীম আরা টলির জন্মদিন

১৯৫৭ সালের ১৭ আগষ্ট ঢাকার শান্তিনগরে জন্মগ্রহণ করেন বাংলদেশের প্রথম 'দ্রুততম মানবী' ক্রীড়াবিদ শামীম আরা টলি।

শামীম আরা টলি তাঁর যে স্বীকৃতির জন্য চিরকাল বেঁচে থাকবেন সেটি হচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম দ্রুততম মানবী হওয়ার গৌরব। ১৯৭৩ সালে মাত্র ১৩.৫ সেকেন্ড সময় নিয়ে ১০০ মিটার এবং ২৮.৫ সেকেন্ড সময় নিয়ে ২০০ মিটার স্প্রিন্টারে প্রথম হয়ে স্বর্ণ জিতে তিনি 'দ্রুততম মানবী' হওয়ার খেতাব অর্জন করেছিলেন। সেটি ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর প্রথম জাতীয় অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতা। সেই সময়েই তিনি তিনটি স্বর্ণপদক অর্জন করেন।

তাঁর জন্মদিনে 'গুণীজন' তাঁকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছে।

শামীম আরা টলির বর্ণাঢ্য জীবনী পড়তে ক্লিক করুন।

   
Gunijan

Content on this site is licensed under Creative Commons Attribution-Noncommercial 3.0 Unported.
© 2014 All rights of Photographs, Audio & video clips and softwares on this site are reserved by
.